বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৯:০৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কালীগঞ্জে মাল্টা চাষে স্বপ্ন বুনছেন নুরুল হক   ‘বৈশাখী মেলা নাই’ করোনায় বসি বসি চলছে হামার দিন হামরা এ্যালা কি করি খাই! করোনায় সংসারে স্বচ্ছলতা ফেরাতে পুরুষের পাশাপাশি ক্ষেত খামারে শ্রম বিক্রি করছেন নারীরা!  আইতে ঘুমির পাং না, ঘরোত বৃষ্টির পানি দিয়ে গাও বিছনা ভিজি যায় তবু কাউ একনা মোক ঘর দেয় না বাড়ি বাড়ি গিয়ে ম্যাক্স বিতরণ করলেন ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য প্রার্থী জাহিদুল পুলিশ জনগনের সেবক, প্রশংসা করলে ও কাজ করতে হবে,না করলেও কাজ করতে হবে পুলিশ সুপার সবকিছুর ঊর্ধ্বে একজন প্রকৃত ভালো মানুষ হয়ে উঠতে পারাটাই জরুরি -রাকিবুজ্জামান আহমেদ বর্তমান টেকনোলজি আমাদের সুযোগ করে দিয়েছে দূরে থেকেও কাছে থাকার হাতিবান্ধায় আবুল কাশেম সাবু ‘র’ স্মরণে দইখাওয়া আদর্শ কলেজ শোকসভা ও দোয়া মাহফিল আপনি চাইলে আপনার এলাকা থেকে মাদকের শিখর তুলে ফেলতে পারেন ওসি কালীগঞ্জ
বিদ্যুৎহীন ভেনিজুয়েলায় লুটপাট-খুনোখুনি, নিহত ১৭

বিদ্যুৎহীন ভেনিজুয়েলায় লুটপাট-খুনোখুনি, নিহত ১৭

যেন জাহান্নাম নেমে এসেছে ভেনিজুয়েলায়। এক টানা পাঁচ দিন বিদ্যুৎ নেই। এই সুবাদে গণহারে লুটপাট চালাচ্ছে সরকার দলীয় কিছু গুন্ডা। রাস্তাঘাটে চলছে খুনোখুনি। বন্ধ সকল সেবা সংস্থার কার্যক্রমও। বিদ্যুৎ না থাকার কারণে এ পর্যন্ত ১৭ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির বিরোধী দলীয় নেতা হুয়ান গুয়াইদো। বিবিসি।

জানা গেছে, প্রেসিডেন্ট মাদুরোকে ক্ষমতা থেকে সরানোর দাবিতে চলমান বিক্ষোভের মধ্যে বৃহস্পতিবার অচল হয়ে পড়ে ভেনিজুয়েলার জাতীয় গ্রিড। তবে এ ঘটনার জন্য বিরোধীদলকে দায়ী করেছেন প্রেসিডেন্ট মাদুরো। আর সরকারের ব্যর্থতাকে দায়ী করছেন বিরোধী দলীয় নেতা গুয়াইদো।

বিবিসি জানায়, অস্ত্রের মুখে রাজধানী কারাকাসের শপিং সেন্টারগুলোতে লুটপাট চালাচ্ছে সরকার দলীয় কিছু লোক। বাধা দিলেই খুন করছে তারা। খুন হওয়া কয়েকটি লাশ কারাকাসের রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে। সেবা সংস্থার কার্যক্রম না থাকায় সেগুলো সরাচ্ছে না কেউ।

কারাকাসের মারিয়া ইজারু’র ছেলে দুর্বৃত্তদের হাতে নিহত হয়েছে। কিন্তু মর্গ থেকে লাশ ছাড় করানোর জন্য কোন কর্মকর্তা নেই। অত্যধিক মুদ্রাস্ফিতির কারণে তার জমানো টাকারও কোন মুল্য নেই। ফলে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার সামগ্রী কিভাবে কিনবেন তাও জানেন না তিনি।

চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি রাজধানী কারাকাসে এক বিক্ষোভে নিজেকে ভেনিজুয়েলার অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষণা করেন মাদুরো। এরপর যুক্তরাষ্ট্রসহ ৫০টি দেশ গুয়াইদোকে স্বীকৃতি দেয়। অন্যদিকে প্রেসিডেন্ট মাদুরোর প্রতি সমর্থন বজায় রেখেছে তুরস্ক, চীন ও রাশিয়া।

এরপর থেকে অর্থনৈতিক অচলাবস্থার সঙ্গে চরম রাজনৈতিক অস্থিরতা যোগ হয় দেশটিতে। ভেঙে পড়ে গোটা শাসনব্যবস্থা। বিদেশি শক্তিগুলো পরস্পরবিরোধী অবস্থান নেয়ায় পরিস্থিতি আরো জটিল হয়ে উঠেছে।

শেয়ার করুন:

সংবাদ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভাষা পরিবর্তন করুন




© All rights reserved © 2018 লালমনিরহাট অনলাইন নিউজ
Design BY PopularHostBD