শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৬:৩২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
৭ বছর আগে মৃত্যু ‘জীবিত’ না হলে মামলা করবেন লক্ষ্মীকান্ত কালীগঞ্জে পুর্ব শত্রুতার জেরে যুবককে কুপিয়ে জখম লালমনিরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ব্যাংক কর্মকর্তা নিহত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা জানালেন তাহির তাহু আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা জানালেন শহিদুল হক শহীদ চন্দ্রপুর ইউনিয়নবাসীর সেবা করতে নির্বাচনে অংশ নিতে মাঠে নেমেছেন জামাল হোসেন খোকন লালমনিরহাটে পৌর পিতা হলেন স্বপন পাটগ্রামে সুইট কালীগঞ্জে গ্রাফিক্স ডিজাইনার খুঁজছে জলছাপ লালমনিরহাটে সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকী, থানায় জিডি কালীগঞ্জে সেই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জন্ম সনদে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ তদন্তে স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক
ঈদের আনন্দ ঝড়-বৃষ্টিতে লন্ডভন্ড কালীগঞ্জ দুই’শতাধিক পরিবারের ঈদ কেড়ে নিলো

ঈদের আনন্দ ঝড়-বৃষ্টিতে লন্ডভন্ড কালীগঞ্জ দুই’শতাধিক পরিবারের ঈদ কেড়ে নিলো

রাহেবুল ইসলাম টিটুল লালমনিরহাট।

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চলবলা ইউনিয়নে ঈদের দিন সকালে ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে দুই’শতাধিক ঘরবাড়ি ও দোকানপাট লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে। এতে আহত হয়েছেন ৮ জন।

‘অধিকাংশ মানুষ এখন খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। ঈদের আনন্দ-উৎসব থেকে বঞ্চিত হয়ে সবগুলো পরিবার অনাহারে-দিন কাটাচ্ছে’।

ঈদের দিন ঝড়ে লন্ডভন্ড ধ্বংসপ্রাপ্ত পরিবার গুলো দিনে মাত্র একবেলা খাবার যোগাড়ের চিন্তা ব্যাকুল, তাই ঈদের আনন্দ পৌঁছেনি তাদের কাছে। বরং দিনগুলো অন্য কয়েকটা দিনের চেয়েও কঠিন সংগ্রামের। ঈদের সেমাই-পায়েসের চেয়ে ঝড়ে পড়ে থাকা ঘর-বাড়ি উদ্ধার করে মাথা গোজার মতো পরিবেশ তৈরি আর ঘরবাড়ি রক্ষা করাই তাদের কাছে মুখ্য।

এমনই কাটছে ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত চলবলা ইউনিয়নের সোনারহাট, সতীরপার,বান্দেরকুড়া, শিয়ালখোওয়া এলাকার ২ হাজার মানুষের ঈদ।

স্থানীয়রা জানান, সকালে হঠাৎ আকাশে ঘন মেঘ দেখা দেয়। এর কিছুক্ষণ পরই ঝড়ের আঘাতে উপজেলার চলবলা ইউনিয়নের সোনারহাট, সতীরপার, বান্দেরকুড়া, শিয়ালখোওয়া এলাকায় মুহূর্তে দুই’শতাধিক বসতবাড়ি, গাছপালা ও সবজি বাগান লণ্ডভণ্ড হয়ে যায়। ঝড়ে উড়ে গেছে অনেকের ঘরের মূল্যবান জিনিসপত্র।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঝড়ের আঘাতে অধিকাংশ ঝুপড়ি ঘর, টিনশেড ঘর, সেমিপাকা ভবন, দোকানপাট, বিদ্যুৎতের খুঁটি, গাছপালা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

শিয়ালখোওয়া এলাকার রফিকুল ইসলাম বলেন, ’ হঠাৎ ঝড়ে সব কিছুই লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। পরিবার পরিজনদের নিয়ে চিন্তায় আছি।ঈদের সেমাই মুখে দিতে পারিনি এখনো।’

চলবলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান
মিজানুর রহমান মিজু বলেন, ঈদের দিন সকালে
ঘূণিঝড়ে আমার ইউনিয়ন সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। অধিকাংশ ঘড় বাড়ি, গাছপালা, ফসলি ক্ষেতের ক্ষতি হয়েছে।

বিধ্বস্ত পরিবারের মানুষ গুলো এখন খোলা আকাশের নিচে পড়ে আছে, এবারের ঈদ আমাদের জন্য না।

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) রবিউল হাসান বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর তালিকা করে তাদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হবে।

লালমনিরহাট-২ আসনের সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ (এমপি) বলেন, চলবলা ইউনিয়নে ঘূর্ণি ঝড়ের আঘাতে দুই’শতাধিক ঘরবাড়ি ও দোকানপাট লণ্ডভণ্ড হওয়ার বিষয়টি জেনেছি, ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার গুলোর খোঁজ-খবর রাখা হচ্ছে।

শেয়ার করুন:

সংবাদ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভাষা পরিবর্তন করুন




© All rights reserved © 2018 লালমনিরহাট অনলাইন নিউজ
Design BY PopularHostBD