সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০২:২০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
তিস্তায় এখন পানিও নেই মাছও নেই কষ্টে দিন কাটাচ্ছি তিস্তা পাড়ের জেলেরা  পাটগ্রামের ‘ইউএনও কে দ্রুত অপসারণ করা না হলে রাস্তাঘাট অচলের হুঁশিয়ারী ইউএনওর আশ্বাসে ঘুরেও জুটলোনা কিছুই লালমনিরহাট অনলাইন নিউজে সংবাদ প্রকাশের পর ফাতেমার ভাঙ্গা বাড়ীতে ডিসি,ঘর দেয়ার আশ্বাস ভাঙ্গা ঘরে রাত কাটে ফাতেমার,স্বামী হারানোর দেড় বছরেও হয়নি বিধবা ভাতার কার্ড রাতে ঘুরে ঘুরে শীতার্তদের মাঝে ডিসির কম্বল বিতরণ ইন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড ইউনিভার্সিটিতে ওয়েভার ও উপহারসহ ভর্তি লালমনিরহাট অনলাইন নিউজে সংবাদ প্রকাশের পর কদবানুকে ঘর দেয়ার আশ্বাস ইউএনও’র লালমনিরহাটে কৃষি দপ্তরের গোডাউনে আগুন নিয়নত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট বাবা তুমি নেই তাতে কি হয়েছে ? তোমার রোপন করা গাছের ফল খেয়ে অনেকেই তৃপ্তি মেঠাচ্ছে
বোয়ালমারীতে চতুল ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারী গাছ কাঁটার অভিযোগ

বোয়ালমারীতে চতুল ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারী গাছ কাঁটার অভিযোগ

বোয়ালমারী প্রতিনিধি :

ফরিদপুরের বোয়ালমারী পৌর সদরের ঠাকুর পুর এলাকায় বারাশিয়া নদের তীরবর্তী প্রায় অর্ধশত বছরের পূরোনো বিশাল একটি রেন্ট্রীগাছ কেঁটে নিয় যাচ্ছে চতুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান যুবলীগ নেতা শরীফ মো: সেলিমুজ্জামান লিটু।গত শুক্রবার সকাল থেকে গাছটি কাটতে শুরু করেছেন কয়েকজন শ্রমিক। তারা বলছেন লিটু শরীফ তাদেরকে গাছ কাঁটার নির্দেশ দিয়েছেন। বোয়ালমারী পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ সহকারী প্রকৌশলী একেএম জহুরুল হক বলেন তিনি এব্যাপারে কিছু জানেননা।তিনি বিষয়টা নিশ্চিত হয়ে তিনি ব্যাবস্থা নেবেন বলে জানান। উপজেলা চেয়ারম্যান এম,এম মোশাররফ হোসেন এর দৃষ্টি আকর্ষন করা হলে তিনি জানান,গাছ কাঁটার ব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না। সরকারী গাছ বিক্রীর কোন টেন্ডার হয়েছে এমন কিছুও তিনি শোনেননি। তবে টেন্ডার ছাড়া সরকারী গাছ বিক্রীর কোন সুযোগ নেই বলে জানান উপজেলা চেয়ারম্যান।এ ব্যাপারে চতুল ইউপি চেয়ারম্যান লিটু শরীফ বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপজেলা প্রকৌশলী টেন্ডারের মাধ্যেমে গাছটি বিক্রি করেছে।তবে এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা জাকির হোসেন কিছুই জানেন না বলে জানান।উল্লেখ্য সরকারী দলের এমপি আব্দুর রহমানের আশির্বাদ পুষ্ট যুবলীগ নেতা চতুল ইউপি চেয়ারম্যান লিটু শরীফ কিছুদিন পূর্বে নিজের ঔষধের দোকানের ফ্রিজে মাছ রেখে ভ্রাম্যমান আদালত কর্তৃক জরিমানা ও সাজা প্রাপ্ত হলে সে যাত্রায় ক্ষমা চেয়ে পার পেয়ে যান।

শেয়ার করুন:

সংবাদ টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভাষা পরিবর্তন করুন




© All rights reserved © 2018 লালমনিরহাট অনলাইন নিউজ
Design BY PopularHostBD